রাষ্ট্রসংঘের বিশ্বজয়ের মঞ্চে এবার সবুজসাথী ও উৎকর্ষ বাংলা

রানার চক্রবর্তী

মা-মাটি-মানুষের বাংলা জয় করছে বিশ্ব। জনপ্রিয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে বাংলা সার্বিক অর্থেই হয়ে উঠেছে বিশ্ব বাংলা। তাই বিশ্বের দরবারে, রাষ্ট্রসংঘের তকমায় জুটছে একের পর এক সেরার সম্মান। দেশের কোনও রাজ্য যা এতদিন ভেবেই উঠতে পারেনি, তেমন সম্মানই ছিনিয়ে আনছে পশ্চিমবঙ্গ। আবারও দেশের সীমানা ছাড়িয়ে বিশ্বের দরবারে সেরার স্বীকৃতি। ‘কন্যাশ্রী’-র পর ‘উৎকর্ষ বাংলা’। রাষ্ট্রসংঘের সংস্থার বিচারে চ্যাম্পিয়ন প্রকল্পের শিরোপা পেয়েছে ‘উৎকর্ষ বাংলা’। শুধু তাই নয়, একইভাবে রাষ্ট্রসংঘের বিচারে বিশ্বসেরা প্রকল্পের তালিকায় উঠে এসেছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মস্তিষ্কপ্রসূত আর একটি প্রকল্প, সবুজসাথী। সেরার সেরা কে হল সেটা জেনেভায় ঠিক হবে ৯ এপ্রিল।

প্রথমে ‘উৎকর্ষ বাংলা’ প্রকল্প সেরা পাঁচে উঠে আসে। ‘সবুজসাথী’ ও ই-গভর্ন্যান্স ইভেন্টে সেরা পাঁচের মধ্যে উঠে এসেছে তার অভিনবত্বে। ইতিপূর্বে রাষ্ট্রসংঘ মমতার কন্যাশ্রী প্রকল্পকে বিশ্বসেরার সম্মান দিয়েছে। নেদারল্যান্ডের ‘দ্য হেগ’ শহরে গিয়ে সেই প্রথম পুরষ্কারটি গ্রহণ করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেবারও বিশ্বের তাবড় দেশের সামাজিক প্রকল্পগুলিকে হারিয়ে দিয়েছিল ‘কন্যাশ্রী’। এবার সেই একই প্রতিযোগিতায় আরও দুই রাজ্যের সামাজিক প্রকল্প। ক্ষমতায় আসার পর ‘সবুজসাথী’ প্রকল্পের সূচনা করেন মুখ্যমন্ত্রী। ক্লাস নাইন থেকে টুয়েলভ পর্যন্ত ছাত্র-ছাত্রীদের এই প্রকল্পে সাইকেল দেওয়া হয়। এখনও পর্যন্ত ৭৫ লক্ষ সাইকেল বিতরণ করা হয়েছে। আর্থিক বছরের মধ্যে ৮০ লক্ষেরও বেশি সাইকেল বিতরণের কাজ শেষ হয়ে যাবে।

সবুজসাথী ইউনিক প্রকল্প। মুখ্যমন্ত্রী তাঁর জেলা সফরে প্রশাসনিক্সভায় ‘সবুজসাথী’র সাইকেল বিতরণ করে আসছেন গত ছ’সাত বছর ধরে। এর ফলে ছাত্র-ছাত্রীদের পড়াশুনার প্রতি উৎসাহ অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে। সামাজিক ক্ষেত্রে এটি একটি বড় উদ্যোগ। এবার রাষ্ট্রসংঘও মানল প্রকল্পের গুরুত্ব। গোটা বিশ্বে রয়েছে ‘সবুজসাথী’। বিশ্বজুড়ে প্রায় দুই মিলিয়ন ভোট পেয়েছে এই ইভেন্টে। অন্যদিকে, রাজ্যের যুবকী -যুবতীদের কর্মদক্ষতা বৃদ্ধিতে ‘উৎকর্ষ বাংলা’ প্রকল্প ফলপ্রসূও হয়েছে। কেন্দ্রের সরকার আগেই এই ক্ষেত্রে রাজ্যকে সেরার সম্মানে ভূষিত করেছিল। এবার সম্মানের শিরোপা এল রাষ্ট্রসংঘের সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল টেলিকমিউনিকেশন ইউনিয়ন বা আইটিইউ-এর তরফে। আইটিইউ-এর সদর দফতর জেনেভায় রাজ্যের প্রতিনিধির হাতে এই পুরষ্কার তুলে দেওয়া হবে। রাষ্ট্রসংঘের কর্তারা চাইছেন, বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজে এই সম্মান গ্রহণ করুন। পুরষ্কার প্রদান অনুষ্ঠান আগামী ৯ই এপ্রিল। ওয়ার্ল্ড সোসাইটি অন দ্য ইনফরমেশন সোসাইটি বা ডব্লুএসআইএস পুরষ্কারে ‘চ্যাম্পিয়ন প্রজেক্ট’ হিসাবে বিবেচিত হয়েছে পশ্চিমবঙ্গের দক্ষতা মনোন্নয়ন প্রকল্প ‘উৎকর্ষ বাংলা’।

This post is also available in: English

Subscribe to Jagobangla

Get the hottest news,
fresh off the rack,
delivered to your mailbox.

652k Subscribers

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial