বাবলু ও সুদীপের পরিবারকে পাঁচ লক্ষ, চাকরিও

কর্মবীর দাসশর্মা

কাশ্মীরের পুলওয়ামায় জঙ্গিহানায় নিহিত হওয়ার কয়েক ঘন্টার মধ্যেই হাওড়ার বাউড়িয়ায় বাবলু সাঁতরার মাকে ফোন করে সান্ত্বনা দিয়েছিলেন জননেত্রী মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পরে ফোনে কথা বলেছিলেন নদিয়ার তেহট্টের নিহত জওয়ান সুদীপ বিশ্বাসের পরিজনের সঙ্গেও। ওইদিনিই সন্ধ্যায় বাউড়িয়ায় মন্ত্রী ফিরিহাদ হাকিম এবং তেহট্টে মন্ত্রী উজ্জ্বল বিশ্বাসকে পাঠিয়েছিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। দেহ আসার পর রাজ্য পুলিশের তরফে গার্ড অফ অনার দিয়ে পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় শেষ্কৃত্য সম্পন্ন হয়। দুই শহিদের অন্ত্যেষ্টিতে হাজির ছিলেন রাজ্যের মন্ত্রীর। এবার দুই বাঙালি জওয়ানের পরিবারকে পাঁচ লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ এবং একজনকে চাকরি দেওয়ার ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী।

সিআরপিএফ জওয়ান বাবলু সাঁতরার ভাই কল্যাণ মুখ্যমন্ত্রীকে কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, “দাদার মৃত্যুতে হাল-হীন নাবিকের মতো অবস্থা হয়েছিল আমাদের পরিবারের। সেখানে মুখ্যমন্ত্রীর এই চাকরি ও আর্থিক সাহায্য সংসারকে ভেসে যাওয়া থেকে রক্ষা করবে।” মুখ্যমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন তেহট্টের শহিদ জওয়ান সুদীপ বিশ্বাসের পরিবারও। কেন্দ্র কোনও সাহায্য বা সহযোগিতার ঘোষণা না করায় চরম ক্ষুব্ধ বাংলার দুই শহিদ পরিবার। দুই জওয়ানের পরিবারকে আর্থিক সাহায্য ও চাকরির ঘোষণা করে জননেত্রী বলেন, “নিহত বাবলু সাঁতরা ও সুদীপ বিশ্বাসের পরিবারের পাশে আছে রাজ্য। তাঁদের অবদানের কাছে এটা হয়তো বড় কিচ্ছু নয়। তবু আর্থিক ক্ষতিপূরণ ও পরিবারের একজনকে চাকরি দেওয়া হবে।”

This post is also available in: English

Subscribe to Jagobangla

Get the hottest news,
fresh off the rack,
delivered to your mailbox.

652k Subscribers

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial