বাংলায় মোদির স্বপ্নপূরণ হবে না, কাঁথিতে শুভেন্দুর চ্যালেঞ্জ

নবারুণ হাজরা

“এরাজ্যে আগে দুটি আসন জেতার কথা ভাবুন। তারপর ২৩টি আসন জেতার কথা ভাববেন। আপনাদের বাংলার কথা ভাববার দরকার নেই। বাংলার কথা ভাববার জন্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রয়েছেন। মধ্যপ্রদেশ, ছত্রিশগড়ে কী হয়েছে সেটাই আপনারা ভাবুন।” কাঁথির পদ্ম পুখুরিয়া মাঠের জনসভা থেকে বিজেপি নেতাদের এভাবেই আক্রমণ করলেন রাজ্যের পরিবহণমন্ত্রী তথা নন্দীগ্রামের বিধায়ক শুভেন্দু অধিকারী। বুঝিয়ে দিলেন, পরিযায়ী পাখির মতো এসে বাংলার মানুষের মন পাওয়া যায় না। এরাজ্যের মানুষ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রতি আস্থাশীল। বক্তব্য রাখতে উঠে বিজেপি সভাপতি অমিত শাহকে নিশানা করে শুভেন্দু বলেন, “আপনার জন্ম হওয়ার আগে থেকে কাঁথিতে আমাদের অধিকারী পরিবার রাজনীতি করে আসছে। আর থাকবেও। আপনি রাজনীতিতে মাত্র দেড়-দুবছর হল এসেছেন। অতীতে কাঁথিতে সিপিএমকে জেতানোর জন্য প্রয়াত মুখ্যমন্ত্রী জ্যোতি বসু দু’বার সভা করেছেন। প্রয়াত প্রধাণমন্ত্রী রাজীব গান্ধী সভা করেছেন। লাভ হয়নি। আপনি তো কোন ছার।”

কাঁথিতে শুভেন্দু-র এই জনসভায় ভিড় কার্যত ব্রিগেডকে মনে করিয়ে দিচ্ছিল। আসলে এখানকার মানুষ যে জননেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং ঘরের ছেলে শুভেন্দু অধিকারীর উপরই আগামীদিনেও ভরসা রাখতে চান এদিনের জনসভায় মানুষের উচ্ছ্বাসেই তা স্পষ্ট। দেশজুড়ে যে অপশাসন বিজেপি সরাকার চালাচ্ছে তারও কঠোর সমালোচনা করেন শুভেন্দু। নাম না করে রাজ্যের নেতাদেরও একহাত নেন তিনি। শুভেন্দুর কটাক্ষ, “শনিপূজোতেও ফিতে  কাটতে ডাকা হয় না আপনাদের। অথচ খড়গপুরের সবচেয়ে বড় উৎসব রাবণ দহনে আমি ডাক পাই।”এই বিপুল জনসমাবেশ দেখে আপ্লুত শুভেন্দু চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে বলেন যে, “এবারের লোকসভা নির্বাচনে কাঁথি কেন্দ্রে তৃণমূল প্রার্থীকে আড়াই লক্ষেরও বেশি ভোটে না জেতাতে পারলে রাজনীতিই ছেড়ে দেব”। প্রতি বক্তব্যের শেষেই শুভেন্দুর সমর্থনে স্লোগানে স্লোগানে গগন ফেটে যায়। লোকের ভিড়ে এদিনের সভাকে ‘মিনি ব্রিগেড’ আখ্যা দেন রাজ্যের মন্ত্রী। নাম না করে কেন্দ্রের বিজেপি নেতাদের কটাক্ষ করে শুভেন্দু বলেন, “যাঁরা সভা করতে আসেন এখানে, তাঁরা বাংলা পড়তে, লিখতে বলতে জানেন না। আমরা মাত্র চারদিনের মধ্যে কাঁথির তিনটি ব্লক ও এগরার একাংশের মানুষকে নিয়ে সভা করেছি। যা জনসমাগম দেখলাম, তাতে আমরা আশা করব, লোকসভা ভোটের আগে বিজেপি এখানে সভা করার কথা ভাববে না। আপনাদের বাংলার কথা ভাবার দরকার নেই। বাংলার কথা ভাবার জন্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আছেন। মধ্যপ্রদেশ, ছত্রিশগড়ে কী হয়েছে সেটাই আপনারা ভাবুন।, আগে দু’টি আসন জেতার কথা ভাবুন, তারপর ২৩টি আসনে জেতার কথা ভাববেন।” দলীয় কর্মীদের প্রতি তাঁর নিদান, “সব জায়গায় সভা করুন। সাধারণ মানুষের কাছে যান। রাজ্যজুড়ে উন্নয়নের যে কর্মকান্ড চলছে তা সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছে দিন। গণতান্ত্রিক পথে বিরোধীদের জবাব দিতে হবে।” এদিনের সভায় উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য, সাংসদ শিশির অধিকারী, দিব্যেন্দু অধিকারী, বিধায়ক বনশ্রী মাইতি, রণজিৎ মন্ডল, জেলা পরিষদের সভাধিপতি দেবব্রত দাস, কাঁথি পুরসভার চেয়ারম্যান সৌমেন্দু অধিকারী প্রমুখ।

 

 

This post is also available in: English

Subscribe to Jagobangla

Get the hottest news,
fresh off the rack,
delivered to your mailbox.

652k Subscribers