ফিনিশ হয়ে যাবে বিজেপি, হার্মাদ মুক্তি দিবসে শুভেন্দু 

জলি মজুমদার 

একদিকে জননেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরনা অন্যদিকে তৃণমূল কংগ্রেসের অন্যতম সাধারন সম্পাদক তথা রাজ্যের পরিবহণ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর আহ্বান, আরও একটা ২৪ নভেম্বর খেজুরি দেখল লাখো মানুষের জমায়েত। ২০১০ সালের ২৪ নভেম্বর সিপিএমের হার্মাদ’রা সশস্ত্র অবস্থায় খেজুরি দখল করার পরিকল্পনা নিয়েছিল। তৎকালীন সময়ে তমলুকের সাংসদ শুভেন্দু আধিকারীর নেতৃত্বে তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা-কর্মী থেকে সাধারন মানুষ খেজুরি থেকে হার্মাদদের  বিতাড়ন করেছিলেন।

ঐতিহাসিক সেই দিন আজও ভোলেনি খেজুরি তথা বাংলার সাধারণ মানুষ। তাই প্রতি বছর খেজুরিতে ২৪ নভেম্বর “হার্মাদ মুক্তি দিবস” পালন করা হয়। প্রতিবছরের মতো এবছরও লক্ষ মানুষের জমায়েত হয়েছিল হার্মাদ মুক্তি দিবসে। খেজুরিতে গিয়েছিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের অন্যতম সাধারন সম্পাদক তথা রাজ্যের পরিবহণ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী।

এবার খেজুরির কামারদায় পালিত হল হার্মদ মুক্তি দিবসের নবম বর্ষ। এ উপলক্ষে আয়োজিত এক জনসভায় দাঁড়িয়ে সেই হাড় হিম করা সন্ত্রাসের ছবি মনে করিয়ে দিয়ে সজাগ থাকার পরামর্শ দিয়েছেন শুভেন্দু আধিকারী। তিনি বলেন, “নন্দীগ্রাম-খেজুরিতে হার্মাদদের সন্ত্রাসের কথা কখনও ভোলা উচিত নয়। হার্মাদদের কেউ ক্ষমা করবেন না। খেজুরিতে এখন সিপিএমের লোকজনরাই বিজেপির জামা গায়ে দিয়ে এলাকার সন্ত্রাস ছড়ানোর কাজ করছে। আসলে “বোতলটা নতুন, মদ পুরনো।”

খেজুরির আপামর মানুষ তাঁর পাশে দাঁড়িয়ে বার্তা দিয়েছে সন্ত্রাসের সে দিন তাঁরা ভোলেনি। মা-মাটি-মানুষের সরকারের পাশেই যে মানুষ রয়েছে আর থাকবে তাও স্মরণ করিয়ে দিয়েছে সাধারণ মানুষ। সমর্থকদের ব্যপক ভিড়ে উপচে পড়ে জনসভাস্থল। খেজুরি-নন্দীগ্রামের সেই সন্ত্রাসের দিনগুলির কথা মনে করিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি সাম্প্রদায়িক দল বিজেপি থেকে মানুষকে সচেতন হতে বলেন মন্ত্রী। এপ্রসঙ্গে পরিবহণমন্ত্রী আরও বলেন, “বিজেপি সম্পর্কে সজাগ ও সতর্ক থাকতে হবে। তবে আগামী ২০২১ সালে বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির ফানুস ফুটো হয়ে যাবে এবং ওরা ফিনিশ হয়ে যাবে।”

This post is also available in: English

Subscribe to Jagobangla

Get the hottest news,
fresh off the rack,
delivered to your mailbox.

652k Subscribers

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial