গঙ্গাসাগর মেলার আগে দ্রুত মাঝেরহাট সেতু চালুর আর্জি

Share, Comment
EmailFacebookTwitterWhatsApp

সারস্বত বন্দ্যোপাধ্যায়

গঙ্গাসাগর মেলা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সৌজন্যে ও উদ্যোগে দেশের সেরা তীর্থ-উৎসবে পরিগণিত হয়েছে। যে উৎসব প্রতি বছর হয়ে থাকে। যেখানে মানুষে মানুষে মিলনের ক্ষেত্র। তিনি আগেই তুলে নিয়েছিলেন তীর্থকর। সুষ্ঠুভাবে মানুষের সুবিধায় এবারও আগাম ব্যবস্থা করে রাখলেন মুখ্যমন্ত্রী। এমনকী, মাঝেরহাট ব্রিজ মেলার আগে দ্রুত চালু করতে চিঠি লিখলেন রেলমন্ত্রীকেও।

সামনেই গঙ্গাসাগর মেলা। লক্ষ লক্ষ পুণ্যার্থী আসবেন সেই মেলায়। তার আগে নতুন সেতু চালু না করা গেলে তীব্র যানজট হবে। সেপ্টেম্বরে শেষ করার সময় দেওয়া হলেও তা পূরণ হয়নি। রেলের কাছ থেকে মাঝেরহাট ব্রিজের “সুপার স্ট্রাকচার”-এর অনুমোদন চেয়েও পায়নি রাজ্য। তা দ্রুত অনুমোদনের জন্যই রেলমন্ত্রীকে চিঠি মমতার। ব্রিজের নকশার খসড়া খতিয়ে দেখে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ছাড়পত্র দেওয়ার কথাও চিঠিতে উল্লেখ করেছেন।

এবার গঙ্গাসাগর মেলায় যদি কোনও তীর্থযাত্রী অসুস্থ হয়ে পড়েন, তার জন্য এয়ার আম্বুলেন্স রাখা হচ্ছে। সেই সঙ্গে রাখা হবে একশোটি ওয়াটার অ্যাম্বুলেন্সও। রাস্তায় যানজটের জন্য অসুবিধা হতে পারে সেকথা মাথায় রেখেই আকাশপথে ও জলপথে অসুস্থ ব্যক্তিদের কলকাতায় আনার ব্যবস্থা রাখা হচ্ছে। প্রত্যেক তীর্থযাত্রী, সাংবাদিক-সহ গঙ্গাসাগরে থাকা সকলের জন্য পাঁচ লক্ষ টাকা করে বিমা করা হচ্ছে। তীর্থযাত্রীদের যাতে কোনওরকম অসুবিধা না হয়, তার জন্য সরকারি স্তরে সবরকম ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নবান্নে মেলার প্রস্তুতি বৈঠকে ছিলেন মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়, শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়, ফিরহাদ হাকিম, অরুপ বিশ্বাস, সুজিত বসু, পাখিরা এবং সরকারের পদাধিকারীরা। এবারও ভাগ করে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। এবার ১১ জানুয়ারি থেকে সাধারণ মানুষ গঙ্গাসাগর মেলার উদ্দেশ্যে রওনা হবেন। পুণ্যস্নান রয়েছে ১৪ ও ১৫ জানুয়ারি।

 

This post is also available in: English

Subscribe to Jagobangla

Get the hottest news,
fresh off the rack,
delivered to your mailbox.

652k Subscribers

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial