কাশ্মীর সন্ত্রাস নিয়ে ঘৃণ্য রাজনীতি বিজেপির

সাম্প্রদায়িক উসকানি রুখবে মানুষইঃ মমতা

কাশ্মীরে জঙ্গিহানায় নিহিত শহিদিদের প্রকৃত শ্রদ্ধা না জানিয়ে দেশপ্রেমের নামে ভারত জুড়ে অশান্তি ও দাঙ্গা বাধানোর চেষ্টা করছে আরএসএস, বিশ্ব হিন্দু পরিষদ এবং বিজেপি। মধ্যরাতে গুটিকয় মানুষ তথাকথিত দেশপ্রেমের স্লোগান দিয়ে রাস্তায় নেমে একের পর এক গোলমাল সৃষ্টি করছে। আর সাংবিধানিক পদে থেকেও কয়েকটি রাজনোইতিক দল পুরোপুরি দলীয় স্বার্থে গুজব ছড়াচ্ছে। পুলওয়ামার ঘটনা নিয়ে বিজেপি এবং তার সহযোগী সংগঠনের এমনই নানা চক্রান্ত সম্পর্কে অভিযোগ করেছেন জননেত্রী বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মা-মাটি-মানুষ সরকারের প্রধান জননেত্রী অভিযোগ করেছেন, “গত কয়েকদিন ধরেই দেখা যাচ্ছে রাত বারোটার পর ভারতের জাতীয় পতাকার অবমাননা করে গুটিকয় যুবক পাড়ায় পাড়ায় তথাকথিত দেশপ্রেমের স্লোগান দিচ্ছে। এইসব সাম্প্রদায়িক সংগঠনগুলি মানুষকে ঘৃণা করতে শেখায়। এরা রাতে বেরিয়ে আতঙ্ক তৈরী করছে। বেহালা ও বনগাঁয় এমন ঘটনা ঘটেছে। শ্রীরামপুরে একটা সম্প্রদায়ের জলসা চলছিল। সেখানে আরএসএস সমর্থকরা হামলা চালিয়েছে। বহিরাগত এইসব আরএসএসের প্রচারকরাআ এই সুযোগ হিন্দু-মুসলমান-শিখ-খ্রিস্টান জিগির তুলে দাঙ্গা লাগাচ্ছে।” দিনকয়েক আগে মার্কিন গোয়েন্দারা সতর্ক করে বলেছিলেন, লোকসভা ভোটের আগে ভারতের বিভিন্ন প্রদেশে দাঙ্গা হবে। সেই গোয়েন্দা রিপোর্ট উল্লেখ করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “আমেরিকা যা বলেছিল, এখন দেখছি তার অনেকটাই সত্যি। গোটাটাই বিজেপি ও আরএসএসের চক্রান্ত।”

শুধুমাত্র মৌলবাদ বা সাম্প্রদায়িক উসকানি নয়, দাঙ্গা বাধানোর জন্য আরএসএসের কিছু লোক বোরখা কিনে এনে তা পরে বাইরে বেরিয়ে শিশু চুরির গুজব ছড়াচ্ছে। মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ, “খবর এসেছে বাজার থেকে বোরখা কিনে বিভিন্ন মহল্লায় ঢুকে প্রচার করে আরএসএসের লোকেরাই দাঙ্গা লাগানোর চেষ্টা করছে। কয়েকদিন আগে কলকাতাতেও এমন অপচেষ্টা হয়েছে। কিন্তু স্থানীয় বাসিন্দারা এবং পুলিশ প্রশাসন বিজেপি ও আরএসএসের এই চক্রান্ত ভেস্তে দিয়েছে।” এর পরই মা-মাটি-মানুষ সরকারের প্রধান বলেন, “আমি পুলিশের ডিজি, এসপি থেকে শুরু করে আইসি, এসআই, কনস্টেবল, হোমগার্ড পর্যন্ত সবাইকে নির্দেশ দিচ্ছি, খেয়াল রাখতে হবে, সতর্ক থাকতে হবে, কেউ যাতে এমন ঘটনায় মদত দিতে না পারে। আমরা এসব কিছুতেই মেনে নেব না।” নির্বাচন যত এগিয়ে আসছে ততই বিজেপি ষড়যন্ত্র করে গোলমাল বাধানোর চেষ্টা করে যাচ্ছে বলে তোপ দেগেছেন মা-মাটি-মানুষের নেত্রী।

বিজেপির এক প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি কাশ্মীরিদের বয়কটের যে আবেদন করেছেন তারও তীব্র নিন্দা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একইসঙ্গে এক নামহীন কর্নেলের কাশ্মীর বয়কটের আবেদনেরও বিরোধিতা করেছেন জননেত্রী। মা-মাটি-মানুষের নেত্রী বলেছেন, “এইসব গুজব যারা রটাচ্ছে তদের নাম উচ্চারণ করতে লজ্জা লাগে। ওরা নিজেদের শুধু ভারতীয় ভাবে, বাকি সবাইকে পাকিস্তানি বলে প্রচার করছে।” সাম্প্রদায়িক রাজনৈতিক দল যে গুজব ছড়াচ্ছে, তার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর আবেদনও করেছেন বাংলার অগ্নিকন্যা। দেশের একতার উপর জোর দিয়ে তৃণমূল নেত্রী বলেছেন, “আমরা সকলে মিলে দেশের একতা রক্ষা করব। ইউনাইটেড ইন্ডিয়া নামে মঞ্চ গড়েই লড়াই করব। যারা ভারতকে ভাগাভাগি করতে চাইছে, তাদের বিরুদ্ধে আমাদের লড়াই চলছে চলবে।”

এরপরই জঙ্গিহানার তীব্র নিন্দা করে জননেত্রী বলেন, “জঙ্গিদের কোনও জাত হয়য় না, ধর্ম হয়য় না। নির্দিষ্ট সম্প্রদায়ের উপর আঙুল তুলে কোনও লাভ নেই। যখনই কোনও ঘটনা ঘটে তখন আমরা সবাই এক হয়ে কাজ করি। এটাই আমাদের সংস্কৃতি ও পরম্পরা।”

This post is also available in: English

Subscribe to Jagobangla

Get the hottest news,
fresh off the rack,
delivered to your mailbox.

652k Subscribers

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial